ডায়াবেটিসের খাদ্যঃ এই পাঁচটি ফল আপনার রক্তে শর্করার মাত্রা রাখবে নিয়ন্ত্রিত

বর্তমানে বিশ্বজুড়ে ৪২৫ মিলিয়ন মানুষ ডায়াবেটিসের দ্বারা নানাভাবে প্রভাবিত। ২০১৭ সালে ভারতে ডায়াবেটিস আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৭২.৯ মিলিয়ন।

एनडीटीवी फूड डेस्क  |  Updated: November 22, 2018 10:04 IST

Reddit
5 Low Sugar Fruits Diabetics Can include in Diabetes Diet

ডায়াবেটিস মেলিটাস এই মুহূর্তে বিশ্বের সবচেয়ে সাধারণ রোগ হয়ে ওঠার দিকেই এগিয়ে চলেছে ভয়ঙ্কর গতিতে। বর্তমানে বিশ্বজুড়ে ৪২৫ মিলিয়ন মানুষ ডায়াবেটিসের দ্বারা নানাভাবে প্রভাবিত। ২০১৭ সালে ভারতে ডায়াবেটিস আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৭২.৯ মিলিয়ন। ডায়াবেটিস রক্তে ​​শর্করার (গ্লুকোজ) মাত্রা বাড়িয়ে দেয়। পূর্ববর্তী নানা গবেষণায় কিডনির জটিলতা, স্থূলতা এবং হৃদরোগের সাথেও ডায়াবেটিস যে সম্পর্কযুক্ত তা প্রমাণিত হয়েছে। ডায়াবেটিকদের প্রায়ই তাদের খাদ্য বিষয়ে অতিরিক্ত সতর্কতা অবলম্বন করতে বলা হয়। মরশুমি ফল বেশি খেতে বলা হয় কারণ ফল অ্যান্টিঅক্সিডেন্টসমূহে এবং বিরোধী-প্রদাহজনক যৌগগুলিতে সমৃদ্ধ, যা ডায়াবেটিস পরিচালনায় গুরুত্বপূর্ণ। তবে সব ফল নয়! আম, চিকু, তরমুজ এবং আঙ্গুরের মতো ফল অবশ্যই স্বাস্থ্যকর কিন্তু চিনির পরিমাণও যথেষ্ট বেশি। এই চিনিগুলি প্রাকৃতিক চিনি এবং সাধারণত নানান পানীয় এবং ক্যান্ডিগুলিতে পাওয়া যায় এমন বিপজ্জনক ধরনের চিনির মতো নয়। এই ফলগুলি খাওয়ার আগে আপনার ডাক্তারের সাথে পরামর্শ করা ভাল। তবে গ্লাইসমিক সূচক কম এমন ফল নিশ্চিন্তে খেতে পারেন। গ্লাইসেমিক ইনডেক্স (জিআই) হল একটি সূচক যা খাদ্যে কার্বোহাইড্রেটের মাত্রা ও কীভাবে তা রক্তে চিনির ভারসাম্যের সমস্যা ঘটায় তা নির্ধারণ করতে সাহায্য করে। নিম্ন জিআই মানের খাদ্য (৫৫ বা তার কম) হজম, শোষণ এবং বিপাক হতে সময় লাগে।, এবং রক্তে গ্লুকোজের মাত্রা খুব ধীরে ধীরে বৃদ্ধি করে। যেহেতু এই ফলগুলিতে ফাইবার বেশি থাকে, তাই তা আপনাকে দীর্ঘক্ষণ ধরে পূর্ণ রাখে এবং খিদে কমায়। এর ফলে ওজনও কমে।

বিয়ের লাড্ডু নয়, সহকর্মীদের বিয়ের রঙিন ম্যাকারন উপহার পাঠাচ্ছেন প্রিয়াঙ্কা চোপড়া

এখানে পাঁচটি কম শর্করা এবং নিম্ন জিআই সূচক সমৃদ্ধ ফল রয়েছে যা আপনি ডায়াবেটিস ডায়েটে অন্তর্ভুক্ত করতে পারেন

1. পেয়ারা: পেয়ারা ফাইবারে সমৃদ্ধ যা কোষ্ঠকাঠিন্যের (একটি সাধারণ ডায়াবেটিক উপসর্গ) সমস্যায় সাহায্য করে এবং রক্তের চিনির বৃদ্ধির সম্ভাবনা কমিয়ে দেয়। 

2. পীচ: ১০০ গ্রামের পীচে ফাইবার আছে ১.৬ গ্রাম। ফাইবার রক্ত ​​প্রবাহের মধ্যে চিনির মুক্তির গতি ধীর করে তোলে।

3. কিউই: টক এবং সুস্বাদু এই ফল ভিটামিন এ এবং সি ও অ্যান্টিঅক্সিডেন্টসে সমৃদ্ধ। কিউই রক্তে গ্লুকোজ ধীরে ধীরে মুক্তি পেতে সহায়তা করে, যা রক্তে চিনির আচমকা বৃদ্ধির ঝুঁকিকে কমিয়ে রাখে।

4. আপেল: প্রতিদিন একটা করে আপেল ডায়াবেটিস পরিচালনার জন্য বিস্ময়কর কাজ করতে পারে। দ্রবণীয় এবং অদ্রবণীয় ফাইবারের পর্যাপ্ত ভাণ্ডার আপেল আপনার রক্ত ​​শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণ করতে সাহায্য করে এবং শর্করার উর্ধ্বগতিও প্রতিরোধ করতে পারে। কাঁচা এবং তাজা আপেল খাওয়া সবথেকে উপকারী।

5. কমলা: আমেরিকান ডায়াবেটিস অ্যাসোসিয়েশন ডায়াবেটিসের সুপারফুডসের মধ্যে বেশ কিছু সাইট্রাস ফল তালিকাভুক্ত করেছে। অ্যাসোসিয়েশনের মতে, কমলা আঙ্গুর এবং লেবু ফাইবার, ভিটামিন সি, ফোলেট এবং পটাসিয়াম দিয়ে পূর্ণ, যা ডায়াবেটিকদের বহু উপকারে আসে।

আপনার খাদ্যতালিকায় এই ফলগুলি অন্তর্ভুক্ত করুন এবং স্বাভাবিকভাবেই ডায়াবেটিস পরিচালনা করুন। কিন্তু, আপনার ডায়েটে কোনও ফল যোগ করার আগে আপনার ডায়াবেটোলজিস্টের সাথে পরামর্শ করতে ভুলবেন না।

খাদ্য সংক্রান্ত আরও খবর পড়ুন এখানে

Comments

খাদ্য সংক্রান্ত সাম্প্রতিক খবর, স্বাস্থ্য সংক্রান্ত টিপস, রেসিপি জানতে, লাইক করুন আমাদের Facebook পেজ অথবা ফলো করুন Twitter আর সাবস্ক্রাইব করুন YouTube

Advertisement
Advertisement