Diabetes And Weight Loss: ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ আর ওজন হ্রাসের জন্য ভরসা রাখুন ওটসে

ওটসে বিটা-গ্লুকান নামের দ্রবণীয় ফাইবার রয়েছে যা রক্তের গ্লুকোজ মাত্রা স্থিতিশীল করে ডায়াবেটিস পরিচালনা করতে সহায়তা করে।

एनडीटीवी फूड डेस्क  |  Updated: September 21, 2018 09:52 IST

Reddit
Diabetes And Weight Loss: start having Oats for your better health

ওটস (Oats) স্বাস্থ্যকর ব্রেকফাস্ট, কারণ গোটা শস্য খাদ্যের পুষ্টিগুণই বাড়ায় না এতে থাকা গুরুত্বপূর্ণ ভিটামিন, খনিজ এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট শরীরের পক্ষে খবুই উপকারী। বিশেষত ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য এটি খুবই ভালো খাবার। বেশিরভাগ স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা পরামর্শ দিয়েছেন যে ওটস ডায়াবেটিকদের রক্ত ​​শর্করার মাত্রা পরীক্ষাতে সহায়তা করতে পারে। ডায়াবেটিস এবং স্থূলতা সাম্প্রতিক সময়ের একটি গুরুতর সমস্যা। সুস্থ খাদ্য  আর নিয়মিত ব্যায়ামের মাধ্যমেই একমাত্র এই রোগ থেকে মুক্তি মিলতে পারে। স্বাভাবিকভাবে ডায়াবেটিস পরিচালনা করতে সাহায্য করে এই ওটস।

ডায়াবেটিসের জন্য ওটস-

ওটস নিম্ন-গ্লাইসমিক খাদ্য। এটি রক্তের শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণে রাখতে সহায়তা করে।

ওটসে বিটা-গ্লুকান নামের দ্রবণীয় ফাইবার রয়েছে যা রক্তের গ্লুকোজ মাত্রা স্থিতিশীল করে ডায়াবেটিস পরিচালনা করতে সহায়তা করে।

এর মধ্যে থাকা ফাইবার দীর্ঘ সময়ের জন্য পেট ভরা রাখে এবং অন্ত্রে ভাল ব্যাকটেরিয়া বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে। ফাইবার হজমে সময় লাগে, যা রক্ত ​​শর্করার মাত্রা ধীরে ধীরে বৃদ্ধি করে।

ওটস মূলত কার্বোহাইড্রেটের উত্স, যা রক্তের প্রবাহে রক্তে শর্করার মাত্রা বাড়িয়ে চিনিতে রূপান্তরিত হয়। তবে, ওটসের কার্বোহাইড্রেটে ফাইবার রয়েছে, যা রক্তের প্রবাহে চিনির ধীর ধীর মুক্তি ঘটায়।

জটিল কার্বোহাইড্রেট সহ, ওটসে অল্প পরিমাণে প্রোটিন এবং স্বাস্থ্যকর চর্বি থাকে।

oatmeal

ওজন কমানোর জন্য ওটস

ওটস কম স্টার্চযুক্ত এবং ডাইইউরেটিক। যার মানে তারা শরীরের অতিরিক্ত জল নিয়ন্ত্রণ করতে সহায়তা করে।

ওটস ফাইবার সমৃদ্ধ, যা পেট ভরা রাখে এবং অত্যধিক খাবার খাওয়া থেকে দূরে রাখে।

প্রোটিন রক্ত ​​শর্করার মাত্রা স্থিতিশীল রাখে এবং ইনসুলিন বৃদ্ধি নিয়ন্ত্রণ করে মোটা হওয়া থেকে বাঁচায়।

ওটসে ক্যালোরি কম, ফলত ওজন হ্রাসে সাহায্য করে।

 

weight loss

কিভাবে ডায়াবেটিস ও ওজন কমানোর জন্য ওটস ব্যবহার করতে পারেন-

এখানে কিছু রেসিপি রইল যা এই সুস্থ খাদ্যকে নানা স্বাদে ব্যবহার করতে আপনাকে সাহায্য করতে পারে।

1. ওটস ইডলি (Oats Idli

2. ওটস খিচুড়ি (Oats Khichdi)

3. ওটস উত্তপম (Oats Uttapam)

4. ওটস ও চিকেন পরিজ (Oats and Chicken Porridge)

5. ওটমিল, দই ও ফলের ব্রেকফাস্ট (Oatmeal, Yogurt and Fruit Breakfast Medley)

Comments

খাদ্য সংক্রান্ত সাম্প্রতিক খবর, স্বাস্থ্য সংক্রান্ত টিপস, রেসিপি জানতে, লাইক করুন আমাদের Facebook পেজ অথবা ফলো করুন Twitter আর সাবস্ক্রাইব করুন YouTube

Advertisement
Advertisement