ভালো হজমশক্তিই নিশ্চিত করবে দীর্ঘ সুস্থতা

খাবার হজম না হলে এনার্জির লেভেল কমে যায়, দুশ্চিন্তা বৃদ্ধি হয়, গাটের স্বাস্থ্য বিঘ্নিত হয়, লিভারের সুস্থতায় সংশয় দেখা যায়, পাশাপাশি ওজন বৃদ্ধির সমস্যা তো আছেই।

एनडीटीवी फूड डेस्क  |  Updated: February 18, 2019 17:34 IST

Reddit
Easy Tips To Improve Digestion
Highlights
  • হজম একটি গুরুত্বপূর্ণ শারীরবৃত্তিয় প্রক্রিয়া
  • ঠিকমতো হজম না হলে লিভারের ও গাটের স্বাস্থ্য বিঘ্ন দেখা দেয়
  • নিয়মিত দই খেলে হজমশক্তি উন্নত হয়

স্বাভাবিক ভাবে খাবার হজম হওয়া অনেকের কাছেই এক বিরাট ঝামেলার বিষয়। বিজ্ঞানের দিক থেকে হজম বলতে বোঝায় শরীরে খাদ্য প্রবেশের পরে তার সঠিকভাবে এনার্জি এবং নিউট্রিশনে বিভক্ত হয়ে শরীরে আত্তীকরণের প্রক্রিয়াকে। শরীর সুস্থ রাখতে গেলে হজম একটি অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ প্রক্রিয়া‌। তবে বদহজম, কোষ্ঠকাঠিন্য, আইবিএস এবং অন্যান্য হজম সংক্রান্ত সমস্যা কিন্তু সামগ্রিক ভাবে স্বাস্থ্যের উপর প্রভাব ফেলতে পারে। এর ফলে অন্যান্য সমস্যাও দেখা দিতে পারে। ঠিকভাবে খাবার হজম না হলে এনার্জির লেভেল কমে যায়, দুশ্চিন্তা বৃদ্ধি হয়, গাটের স্বাস্থ্য বিঘ্নিত হয়, লিভারের সুস্থতায় সংশয় দেখা যায়, পাশাপাশি ওজন বৃদ্ধির সমস্যা  তো আছেই। স্বাস্থ্যকর খাবার খাওয়ার অভ্যাস গড়ে তুললে এই সমস্যা থেকে অনেকটাই মুক্তি পাওয়া যায়।

ব্রোকোলির স্বাদে মজে স্ন্যাকসের মজা

হজম শক্তিকে সঠিক পথে চালনার জন্য রইল কিছু টিপস:

১. তন্তু সমৃদ্ধ খাবার খান

প্রচুর তন্তু সমৃদ্ধ ফল-সবজি আপনার নিত্যদিনের ডায়েটে রাখুন। আপেল, পাম, পালংশাক, ওটস, বাদাম জাতীয় খাবারে উপকার পাবেন। এর ফলে গ্যাস্ট্রোইন্টেস্টাইনাল ট্রাক পরিষ্কার থাকবে। নিয়মিত মলত্যাগের মাধ্যমে পেট পরিষ্কার রাখা সম্ভব হবে।

২. খাবার খান চিবিয়ে

কোনওমতে গিলে গিলে তাড়াহুড়ো করে খেয়ে নিলে পেট ভরে ঠিকই, কিন্তু সেই খাবার হজম হওয়া খুবই দুঃসাধ্য। চিকিৎসকরা সব সময় পরামর্শ দেন যে কোনও খাবারকে সময় নিয়ে ভালোভাবে চিবিয়ে খেতে। তা হলে তা হজমে সাহায্য করে।

পাতে থাক দক্ষিণ ভারতীয় পদ, ওজন কমবে দ্রুত

q7vsg0j8

ভালো ভাবে চিবিয়ে খাবার খান

৩. ডায়েটে থাক পানীয়

প্রচুর পরিমাণে জল বা ফলের রস প্রত্যেকদিন শরীরের জন্য দরকার। এতে শারীরবৃত্তীয় ক্রিয়া সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন হতে পারে। পেট পরিষ্কার থাকে এবং শরীরের ভারসাম্য কখনও বিঘ্নিত হয় না। অনেকে নানা রকম ডিটক্স-এর মাধ্যমে জলের ঘাটতি পূরণ করে থাকেন।

৪. পাতে থাক প্রোবায়োটিক

গাটে ভালো ব্যাকটেরিয়ার উপস্থিতি নিশ্চিত করতে প্রোবায়োটিক নিয়মিত গ্রহণ করা প্রয়োজন। গাট সুস্থ থাকলে হজম শক্তি ভালো হয় এবং তাতে দ্রুত ওজন ঝরানো সম্ভব হয়। দই, কেফির, কিমচি নিয়মিত খাওয়ার অভ্যাস করুন।

৫. সময়ে খান

প্রতিদিনের খাবারের একটা নির্দিষ্ট সময় তৈরি করে ফেলুন। চেষ্টা করুন সেই সময়েই খাবারটা খেতে। তা হলে আপনার হজম ব্যবস্থাও এই নির্দিষ্ট সময়ের সঙ্গে নিজেকে অ্যাডজাস্ট করে নেবে। বিশেষ করে প্রাতরাশ-মধ্যাহ্নভোজ ও রাতের খাবারের জন্য নির্দিষ্ট সময় মেনে চলার চেষ্টা করুন।

এই সাধারণ টিপসগুলো অনুসরণ করলে আপনার হজম শক্তিও হয়ে উঠবে তুখোড়।

আরও খবর দেখুন এখানে

Comments

খাদ্য সংক্রান্ত সাম্প্রতিক খবর, স্বাস্থ্য সংক্রান্ত টিপস, রেসিপি জানতে, লাইক করুন আমাদের Facebook পেজ অথবা ফলো করুন Twitter আর সাবস্ক্রাইব করুন YouTube

Advertisement
Advertisement