Janmashtami 2019: দক্ষিণ ভারতেও কি জন্মাষ্টমীতে শ্রীকৃষ্ণ 'ঘরের ছেলে'?

শ্রীকৃষ্ণের লীলা যেমন অগুন্তি তেমনি তিনি নানা রূপে পূজিত দেশে। আগামী ২৩ অগাস্ট তাঁর জন্মতিথি মেনে উত্তর ভারতের মতো উৎসবে মাতবে দক্ষিণ ভারতও।

Translated by: Upali Mukherjee  |  Updated: August 21, 2019 13:07 IST

Reddit
Janmashtami 2019: How Does South India Celebrate Janmashthami?

দক্ষিণ ভারতে জন্মাষ্টমী পালন

Highlights
  • সারা দেশে জন্মাষ্টমী পালিত হবে ২৩ অগাস্ট
  • দক্ষিণ ভারতীয়রাও নানা অনুষ্ঠানের মধ্যে দিয়ে পালন করবেন এই উৎসব
  • কীভাবে সেখানে পালিত হয় এই উৎসব, জেনেন নিন

শ্রীকৃষ্ণের লীলা যেমন অগুন্তি তেমনি দেশে তিনি নানা রূপে পূজিত । আগামী ২৩ অগাস্ট তাঁর জন্মতিথি মেনে উত্তর ভারতের মতো উৎসবে মাতবে দক্ষিণ ভারতও। তবে একটু ভিন্ন ভাবে। এইদিন সমস্ত ভক্তের কাছে তিনি ঘরের ছেলে গোপাল হিসেবে পূজিত। আজ জেনে নিন, কেরালা থেকে কর্ণাটক--- কীভাবে পালন করবে এই জন্মাষ্টমী (Janmashtami)? দক্ষিণের অনেক রাজ্যেই 'জন্মাষ্টমী'কে 'গোকুলাষ্টমী'ও (Gokulashtami) বলা হয়।   

Janmashtami 2019: কবে পালন করবেন জন্মাষ্টমী? ২৩ না ২৪ অগস্ট?

তামিলনাড়ুতে জন্মাষ্টমী

উৎসবের দিন সকালে চালের গুঁড়ো জলে গুলে প্রবেশদ্বারের সামনে বড় করে আলপনা আঁকেন এই রাজ্যের লোকেরা। বাংলায় যেমন লক্ষ্মীপুজোর দিন লক্ষ্মীর ছোট ছোট পায়ের ছাপ আঁকা হয়, ওইদিন সারা বাড়িতে, আলপনার মধ্যে কৃষ্ণের পায়ের ছাপ আঁকেন তাঁরা। এই ছাপ বাড়ি থেকে মন্দির পর্যন্ত আঁকা হয়। এছাড়া, ভগবৎ-গীতা পাঠ হয়। ফল, মিষ্টি, ননী, মাখন ভোগ হিসেবে দেওয়া হয় কৃষ্ণকে। রান্না করা হয় সিদাই, মিষ্টি সিদাই এবং ভারকডালাই উরুন্দাইয়ের মতো ভাজাভুজি। তারপর মধ্যরাতে পুজো হয় গোপালের।  

কর্ণাটকে জন্মাষ্টমী

জন্মাষ্টমীর দিন এখানে সাড়ম্বরে পালিত হয় রাসলীলা বা ভিট্টল পিন্ডি। এদিন উঁচুতে দইয়ের হাঁড়ি বেঁধে ভাঙেন শহর-গ্রামের বাসিন্দারা। শহরের অলিতে-গলিতে দেখা যায় এই অনুষ্ঠান। সঙ্গে থাকে হুলি ভেসা নাচ-গান। পুজোয় ফল, মিষ্টি, মাখন, ননী, শ্রীখণ্ড ভোগ দিয়ে পরে তা প্রসাদ হিসেবে দেওয়া হয় ভক্তদের মধ্যে। 
 

janmashtmiকর্ণাটকে রাসলীলা র নয়া রূপ ভিট্টল পিন্ডি

অন্ধ্র প্রদেশে জন্মাষ্টমী

উৎসবের দিনে এখানকার ছোট ছেলেরা কৃষ্ণের প্রতীক। এই দিন সকাল থেকেই তাদের তাই 'গোপাল' সাজে সাজানো হয়।  তারপর প্রতিবেশিদের বাড়িতে বাড়িতে নিয়ে যাওয়া হয়। যেন স্বয়ং গোপাল এসেছেন সবার বাড়িতে। ভোগ হিসেবে দেওয়া হয় চাকোড়ি, মুরুক্কু, সিদাই। দই, মাখন, ননী তো থাকেই। তারপর মন্ত্র পড়ে মন্দিরে এবং বাড়িতে মধ্যরাতে ধুমধাম করে পুজো করা হয়।   

কেরালায় জন্মাষ্টমী

সকাল থেকেই পুজোর আয়োজনে মাতেন সবাই। এখানকার গুরুবায়ুর অঞ্চলে অবস্থিত বিখ্যাত ভূলোক বৈকুণ্ঠ মন্দির সুন্দর করে সাজানো হয়। সেখানে চার হাতে শঙ্খ, চক্র, গদা, পদ্ম নিয়ে শ্রীকৃষ্ণের অবস্থান। সারাদিন চলে নামগান। ভোগ হিসেবে দেওয়া হয় পালপায়সম আর আপ্পাম।  



Comments

খাদ্য সংক্রান্ত সাম্প্রতিক খবর, স্বাস্থ্য সংক্রান্ত টিপস, রেসিপি জানতে, লাইক করুন আমাদের Facebook পেজ অথবা ফলো করুন Twitter আর সাবস্ক্রাইব করুন YouTube

Advertisement
Advertisement