ওজন কমাতে চাইলে দুধ খাবেন, নাকি একেবারেই বাদ দেবেন

   |  Updated: February 12, 2019 21:59 IST

Reddit
Want To Shed Kilo, Is Milk The Deciding Factor?
Highlights
  • দুধের মধ্যে স্যাচুরেটেড ফ্যাট থাকে
  • ক্যালসিয়াম-পূর্ণ খাবারে ওজন কমে
  • দুধকে সুষম খাদ্য বলা হয়

বিশ্বব্যাপী যারা ডায়েট করছেন, খুব শীঘ্রই তারা দুধ এবং দুগ্ধজাত দ্রব্যকে নিজেদের খাদ্য তালিকা থেকে বাদ দিতে চলেছেন। ভেগানিজমের উত্থানের সঙ্গে সঙ্গে দুধ এবং দুগ্ধজাত দ্রব্যের জনপ্রিয়তা অনেকটাই কমেছে। তবে ভারতের প্রায় সব জায়গায় দুধ জনপ্রিয়। কারণ দুধে প্রচুর পরিমাণে ক্যালসিয়াম ও প্রোটিন থাকায় দুধকে সুষম খাদ্য বলা হয়ে থাকে। তবে আজকাল বিভিন্ন ডায়েটে বলা হচ্ছে, দুধ বাদ দিয়েও অন্যান্য খাবারের মাধ্যমে শরীরের প্রয়োজনীয় উপাদান পাওয়া সম্ভব।

আপনি কি সিঙ্গল? প্রেম দিবসে একাকী হৃদয়দের জন্য বিশেষ মেনু কলকাতার এই রেস্তোরাঁয়

আরও একটি কারণে দুধকে খাদ্য তালিকা থেকে অনেকে বাদ দিতে চাইছেন, কারণ এর মধ্যে স্যাচুরেটেড ফ্যাট থাকে। দুধ মূলত একটি মিষ্টি খাবার, যাতে প্রচুর ক্যালোরির পাশাপাশি বেশ খানিকটা ফ্যাটও থাকে। আপনি কি ওজন কমানোর ডায়েট করছেন? তা হলে আপনার কি দুধ খাওয়া উচিত?

ওজন কমাতে জন্য দুধ ভালো না খারাপ:

আমেরিকার ডিপার্টমেন্ট অফ এগ্রিকালচারের তথ্য অনুযায়ী ১০০ গ্রাম দুধের মধ্যে থাকে ৩.২৫% ফ্যাট, ৬১ ক্যালোরি এবং ১০০ মিলিগ্রাম ক্যালসিয়াম। প্যাকেটজাত এবং প্রক্রিয়াজাত দুধের ক্ষেত্রে এই পরিমাণ আরও বেশি বেড়ে যায়। আপনি যদি লো ক্যালরি ডায়েটের মধ্যে থাকেন, তা হলে আপনার ফ্লেভার্ড বা প্রক্রিয়াজাত দুধ না খাওয়াই ভালো। তবে আপনি যদি দুধপ্রেমী হন, তা হলে আপনার ওজন কমানোর ডায়েটে দুধ রাখতেই পারেন। তবে কতটা পরিমাণ দুধ খাচ্ছেন সেটা কিন্তু ভেবে দেখতে হবে। কিছু সমীক্ষা দেখিয়েছে, জিম করার পরে চকোলেট দুধ পেশির পুনরুদ্ধারে সাহায্য করে।

বসন্তের পঞ্চমী তিথিতে বাগদেবীর আরাধনার প্রস্তুতি তুঙ্গে

li5v7edgদুধে প্রচুর ক্যালোরি ও ক্যালসিয়াম রয়েছে

২০০৪ সালের একটি সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে যারা কম ক্যালোরির ডায়েট অনুসরণ করছেন, তাদের দিনে তিনবার দুগ্ধজাত দ্রব্য খাওয়া প্রয়োজন। দিনে তিনবার দুগ্ধজাত খাবার খেলে দ্রুত ওজন কমানোও সম্ভব হয়। পরিমান মতো দুধ খেলে শরীরে ক্যালসিয়ামের মাত্রা নিয়ন্ত্রণে থাকে এবং ওজন কমলে টাইপ টু ডায়াবেটিস ও হার্টের রোগের সম্ভাবনা অনেক কমে।

যদি আপনার ল্যাকটোজ ইনটলারেন্স না থাকে তা হলে ওজন কমানোর ডায়েটে আপনি দুধ রাখতেই পারেন। এতে আপনার ওজনও কমবে। তবে আপনি যদি ডায়াবেটিস বা হাইপারটেনশনের রোগী হন তা হলে ঠিক কোন ধরনের দুধ আপনার জন্য আদর্শ সেটা একবার ডায়েটিশিয়ান বা নিউট্রিশনিস্টের সঙ্গে যোগাযোগ করে জেনে নিন।

ডিসক্লেমার: এই লেখায় শুধুমাত্র জেনেরিক তথ্য রয়েছে। এটা কোনও চিকিৎসকের সুচিন্তিত মতামত নয়। আপনার যে কোনও সমস্যায় একজন চিকিৎসকের পরামর্শ নিন। এই তথ্যের কোন দায় এনডিটিভির নয়।

আরও খবর দেখুন এখানে

Comments

খাদ্য সংক্রান্ত সাম্প্রতিক খবর, স্বাস্থ্য সংক্রান্ত টিপস, রেসিপি জানতে, লাইক করুন আমাদের Facebook পেজ অথবা ফলো করুন Twitter আর সাবস্ক্রাইব করুন YouTube

Advertisement
Advertisement