বাজরা, রাগি, ওটস- ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণের হাতিয়ার এই সমস্ত শস্যই

শস্য ডায়াবেটিস রোগীদের খাদ্য তালিকায় আবশ্যিক উপাদান

एनडीटीवी  |  Updated: July 25, 2018 08:57 IST

Reddit
Whole Grains For Diabetes
Highlights
  • শরীর সুস্থ রাখতে এইসব শস্য খান রোজ
  • এগুলি ফাইবার সমৃদ্ধ
  • লো গ্লাইসেমিক খাদ্য হিসেবে জুড়ি নেই ওটস বাজরার

ডায়াবেটিস রোগীদের প্রায় সারাদিনই চিন্তা থাকে কীভাবে ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে রাখা যায়, চিনির পরিমাণ কীভাবে কমানো যায়।  নিয়মমাফিক টিন এবং নিয়মিত ও্যার্ক আউটে আর ভালো স্বাস্থ্যকর খাবার রক্তে চিনি মাত্রার নিয়ন্ত্রণে রাখতে সাহায্য করতে পারে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন,  শস্য খান বেশি করে। ফাইবার সমৃদ্ধ শস্য রক্তে গ্লুকোজের শোষণকে বিলম্বিত করতে সাহায্য করতে পারে। ওটস এবং বাদামি চালের মত রক্তে শর্করার মাত্রা হ্রাস করে, টাইপ -2 ডায়াবেটিসের বিকাশের সম্ভাবনাও কমায়। দেখে নিন কোন শস্যের কী কী গুণঃ

ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে রাখতে পারে যে সমস্ত খাদ্য শস্যঃ 

রাগি

রাগি ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ করতে সাহায্য করা হয়। চাল, ভুট্টা বা গমের তুলনায় রাগি শস্যের বীজের খোসায় প্রচুর পরিমাণ পলিফেনল থাকে। যা রক্তে শর্করা নিয়ন্ত্রণে রাখে। ব্যাঙ্গালোরের পুষ্টিবিদ অঞ্জু সুদেরর মতে, "আপনার সকালের খাবারে রাগি খেতে পারে রোজ। সারা দিন আপনার শরীর সুস্থ রাখতে সাহায্য করবে এটি।"ragi

শুকনো রাগি পিষে তৈরি হয় আটা.


 

বার্লি

বার্লি এই সব শস্যের মধ্যে সবচেয়ে বেশি জনপ্রিয়। সুইডেনের লন্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষণার মতে, বার্লিতে পাওয়া ফাইবার একটি বিশেষ মিশ্রণ হিসেবে খেলে আপনার রক্তে শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণে রাখতে সাহায্য করতে পারে।

lv6emkgo

রোজ বার্লি খেলে ব্লাড সুগার নিয়ন্ত্রণে থাকে.

বাদামী ভাত

বিভিন্ন গবেষণায় দেখানো হয়েছে যে সপ্তাহে রোজ সাদা চালের ভাত খেলে ডায়াবেটিসের ঝুঁকি বেড়ে যায়। অন্যদিকে,  এক সপ্তাহের মধ্যে অন্তত দু’বার বাদামী চালের ভাত খেলে ঝুঁকি কম হতে পারে। বাদামী চালে ফাইটিক অ্যাসিড, ফাইবার এবং পলিফেনল থাকে। যা শর্করার পরিমাণ নিয়ন্ত্রণে রাখতে সাহায্য করে।

brown rice

বাদামী ভাতও ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য সপ্তাহে অন্তত দু'বার ব্যবহার করা উচিৎ

বালগার

অনেক বিশেষজ্ঞ মনে করেন যে বালগার গম বা ডালিয়ার গ্লাইসেমিক সূচি অনেক কম। এটি দ্রুত শোষিত হয় না এবং শর্করার পরিমাণ নিয়ন্ত্রণে রেখে ওজন কমাতেও সাহায্য করে।

porridge

এক বাটি ডালিয়া বা বালগার রোজ আপনাকে সুস্থ রাখতে সাহায্য করে .

ওটস

ওটস  সুস্বাদু ব্রেকফাস্ট হিসাবে অনেকেরই প্রিয়, বিশেষত ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য এটি খুবই উপকারী। যেহেতু ওটস রক্তে শর্করার স্থিরতা বজায় রাখে এবং টাইপ -2 ডায়াবেটিসের ঝুঁকি কমাতে সাহায্য করে, ডায়াবেটিস রোগীদের নিয়মিতভাবে ওটস খাওয়া উচিত।

oats

ফাইবারের আধিক্য রয়েছে ওটসে.

 

বাজরা

নিয়মিত সাদা ময়দার পরিবর্তে বাজরার ময়দা আপনি ফাইবার বেশি পাবেন। ডায়াবেটিস ডায়েটে এটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। বাজরায় জিআই সূচক 49-51 থাকে, যা ডায়াবেটিস আক্রান্তদের জন্য উপযুক্ত। মেটাবোলিক সিনড্রোম এবং পি.সি.ও.এস আক্রান্তদের জন্যও বাজরা উপকারী।

buckwheat 625

বাজরার গ্লাইসেমিক ইন্ডেক্স খুবই কম.

মিলেট

চাল ও গমের আদর্শ বিকল্প হল মিলেট। মিলেটে আয়রণ ও ফাইবারের পরিমাণ খুবই বেশি। ডায়াবেটিসের জন্য যা খুবপই উপকারী।

foxtail millet

মিলেটে আয়রন আর ফাইবার ঠাসা

Comments



খাদ্য সংক্রান্ত সাম্প্রতিক খবর, স্বাস্থ্য সংক্রান্ত টিপস, রেসিপি জানতে, লাইক করুন আমাদের Facebook পেজ অথবা ফলো করুন Twitter আর সাবস্ক্রাইব করুন YouTube

Advertisement
Advertisement