ভাত-প্রেমী অথচ ওজন নিয়েও কপালে ভাঁজ, জেনে নিন উপায় এখানে

অধিকাংশ ভারতীয়ের কাছে ভাতই স্বস্তির খাবার, তিনি আমিশাষী বা নিরামিষাশী যাই হোন না কেন। কিন্তু ভাতের মধ্যেই সবচেয়ে অস্বাস্থ্যকর কার্বোহাইড্রেট বর্তমান থাকে।

एनडीटीवी फूड  |  Updated: March 15, 2019 14:47 IST

Reddit
Healthy Ways To Cook Rice, When Following Rice On A Diet
Highlights
  • রান্না করা সাদা ভাতে প্রচুর ক্যালোরি থাকে
  • স্বাস্থ্যকর পদ্ধতিতে রান্না করলে সাদা ভাতের জুড়ি নেই
  • রান্না করার সময়ে ভাতে অল্প কয়েক ফোঁটা নারকেল তেল দিন

শুধু ভারতেই নয়, বিশ্বব্যাপী বেশিরভাগ মানুষের অন্যতম পছন্দের খাবার হল চালজাতীয় পদ। বিশেষ করে এশিয়েরা সাদা ভাতের বিষয়ে খুবই সংবেদনশীল। ভারতীয়দের বেশিরভাগ পছন্দের পদ চালের তৈরি, তা সে পোলাও হোক বা বিরিয়ানি। দিনের শুরুতে হোক বা শেষে, অধিকাংশ ভারতীয়ের কাছে ভাতই স্বস্তির খাবার, তিনি আমিশাষী বা নিরামিষাশী যাই হোন না কেন। কিন্তু ভাতের মধ্যেই সবচেয়ে অস্বাস্থ্যকর কার্বোহাইড্রেট বর্তমান থাকে। আদতে এটি স্টার্চে পূর্ণ, ফলে রক্তে শর্করার মাত্রা যে কোনো সময়ে বাড়িয়ে দিতে পারে। তার উপরে আপনি যদি ওজন কমানোর বিষয়ে উৎসাহী হন অথচ ভাত খেতেও ভালোবাসেন তাহলে উপায় একটাই। আপনাকে ভাত রান্নার পদ্ধতিতে কিছু পরিবর্তন আনতে হবে। এমনভাবে ভাত রান্না করুন যাতে তার স্টার্চের পরিমাণ বেশ খানিকটা কমানো যায়।

সাদা ভাতের গুণাগুণ:

১০০ গ্রাম রান্না করা ভাতে ১৩০ ক্যালোরি এবং ২৮ গ্রাম কার্বোহাইড্রেট থাকে। এর মধ্যে কোনও খাদ্যতন্তু থাকে না, কারণ আমরা চাল অবস্থায় তার খোসা ছাড়িয়ে ফেলি। ১০০ গ্রাম সাদা ভাতে মাত্র ২.৭ গ্রাম প্রোটিন এবং সামান্য কিছু ভিটামিন পাওয়া যায়। ভাত দিয়ে তৈরি যে কোনো পদে আবার লবণ বেশি মাত্রায় থাকে।

ওজন কমানোর ‘চাবিকাঠি' লুকিয়ে রয়েছে প্রাতঃরাশেই

m2geecbভাত রান্নার স্বাস্থ্যকর পদ্ধতি অনুসরণ করুন

ডায়েট ফ্রেন্ডলি ভাত কিভাবে রাধবেন:

ভাত রান্না করা এমনিতে খুবই সহজ শুধু মাত্র একটা প্রেসার কুকার বা বড় খোলের বাসন খানিকটা জল আর চাল হলেই হয়ে যায়। ভাত রান্নার একটা ভালো দিক হল এতে তেলের ব্যবহার হয় না।

রান্নার সময় কি মাথায় রাখবেন:

১. ভাতকে যতটা পারবেন ফুটিয়ে নিন।

২. খাওয়ার সময়ে অল্প পরিমাণে ভাত এবং উচ্চমানের খাদ্যতন্তু যুক্ত শাকসবজি বেশি করে খান।

৩. সিদ্ধ ভাতের মধ্যে সামান্য গোটা জিরে ফেলে দিন এতে ও রক্তচাপ এবং রক্তে শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণে থাকবে। আপনার ভাতেও একটা হালকা ফ্লেভার হবে।

৪. হাঁড়িতে যখন ভাত ফুটতে বসাবেন তার মধ্যে কয়েক ফোঁটা নারকেল তেল ফেলে দিন। এতে ভাত দ্রুত রান্না হবে এবং ভাতে থাকা স্টার্চের পরিমাণ অনেকটাই নারকেল তেল নিয়ন্ত্রণ করবে। ফলে আপনার ভাতে ক্যালোরির পরিমাণ কমবে।

৫. প্রেসার কুকারে ভাত রান্না করলে তার মধ্যে কয়েকটা লবঙ্গ ফেলে দিন। রক্তে শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণে তো থাকবেই পাশাপাশি এর অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট যে কোনও ইনফ্ল্যামেশন মোকাবিলায় সাহায্য করবে।

আপনিও কি একদিকে ভাত-প্রেমী অন্যদিকে ওজন নিয়েও মাথাব্যথা রয়েছে? সে জন্য ভাত খাওয়া একেবারে বন্ধ করে দিতে হবে এমন কোন কথা নেই, শুধু পরিমাণটা একটু খেয়াল রাখুন। অল্প করে ভাত খান এবং তাকে ভালো করে সেদ্ধ করে নিন। তাহলেই আর ওজনের ভয় আপনাকে চোখ রাঙাবে না।

Comments

খাদ্য সংক্রান্ত সাম্প্রতিক খবর, স্বাস্থ্য সংক্রান্ত টিপস, রেসিপি জানতে, লাইক করুন আমাদের Facebook পেজ অথবা ফলো করুন Twitter আর সাবস্ক্রাইব করুন YouTube

Advertisement
Advertisement